728X90

0

0

0

0

0

0

0

0

0

এই অনুচ্ছেদে

কিডনি সুস্থ রাখার জন্য কীভাবে আপনার ডায়েটকে পরিচালনা করবেন 
28

কিডনি সুস্থ রাখার জন্য কীভাবে আপনার ডায়েটকে পরিচালনা করবেন 

কিডনিকে সুস্থ রাখার জন্য সোডিয়াম ও পটাসিয়াম কম রয়েছে এমন আহারের প্রতি মনোনিবেশ করুন। যদিও বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ  অনুযায়ী এর পাশাপাশি উন্নত মানের প্রোটিন গ্রহণ করা জরুরী।  
Food which are good for your kidney
কিডনি ভাল রাখতে সঠিক খাবার বাছুন। প্রতীকী ছবি/ শাটার স্টক

বেঙ্গালুরুর ২২ বছর বয়সী সৃজা বসু হঠাতই একদিন রান্নাঘরের মেঝেতে জ্ঞান হারিয়ে পড়ে যান। তাঁকে সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তখন তাঁর জ্বর ১০৪ ডিগ্রিতে পৌঁছে গেছে। তার ফ্যাকাসে মুখ দেখে বোঝা যায় যে তার ডিহাইড্রেশন হয়েছে। সাথে সাথে তাকে আইভি ড্রিপ (intravenous fluid) চালু করে দেওয়া হয়অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর দেখা যায়, তাঁর মূত্রনালী উপরের অংশে এবং কিডনিতে সংক্রমণ রয়েছে। 

“আমার সেমিস্টার পরীক্ষার সময় আমি জল আর খাবার দুটোই কম খেয়েছিলাম। আমি আমার দূর্বলতা আর পেট খারাপ দুটোকেই অবজ্ঞাও করেছিলাম। যেটা আমার এই অবস্থাকে আরও বাড়িয়ে দিয়েছে,” দু সপ্তাহ পরে সেরে ওঠার পরে বসু রোমন্থন করেন।   

সুখবর হল আমাদের কিডনির যত্ন নেওয়া খুবই সহজ যা আমাদের কল্পনার অতীতযতদিন আমরা পর্যাপ্ত পরিমাণে জল পান করব, স্বাস্থ্যকর খাবার খাব এবং মাঝারি ভাবে সক্রিয় থাকব ততদিন কিডনি ভালভাবে কাজ করবে। “সঠিক সময়ে খাওয়া, যথেষ্ট পরিমাণে বিশ্রাম নেওয়া আর পর্যাপ্ত পরিমাণে জল পান  আমার শক্তি আর মনোবলকে ফিরে পেতে সাহায্য করেছে,” বসু জানান 

আমাদের শরীর থেকে দূষিত পদার্থকে বের করে দেবার জন্য কিডনিগুলি ছাঁকনির কাজ করে। অবাঞ্ছিত পদার্থগুলিকে বের করে দিয়ে এবং গুরুত্বপূর্ণ পদার্থগুলিকে পুনরায় শোষিত করে তারা হোমোস্ট্যাটিস (আমাদের শরীরে মোট তরল পদার্থের ভারসাম্য) বজায় রাখে যেগুলি আমাদের জীবিত থাকার ক্ষেত্রে একটা প্রধান ভূমিকা পালন করে। যদিও, আমাদের পছন্দের জীবনযাত্রা পালনের জন্য কিডনির সূক্ষ্ম কাজকর্ম মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে।   

লাইফস্টাইল ফ্যাক্টর যেগুলি আপনার কিডনির স্বাস্থ্য হানি করে 

পিয়ার রিভিউড জার্নাল, ফ্রন্টিয়ার্স ইন জেনেটিক্সে প্রকাশিত একটি গবেষণায় বলা হয়েছে যে জিনগত প্রবণতা আপনার কিডনিরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি ৩০ থেকে ৭০ শতাংশ বাড়িয়ে দেয় 

উপরন্তু, মহারাষ্ট্রের পুনেআদিত্য বিড়লা মেমোরিয়াল হসপিটালের প্রধান ডায়েটিশিয়ান বৈশালী মারাঠে বলেছেন,“অনিয়মিত ঘুম, অনিয়মিত খাওয়া, ব্যায়ামের অভাব, অতিরিক্ত জাঙ্ক, প্যাকেটজাত এবং আমিষ জাতীয় খাবার এবং প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় অতিরিক্ত লবণ গ্রহণ কিডনিরোগকে দ্রুততর করে তুলতে পারে”।  

স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে এমন লাইফস্টাইল ফ্যাক্টরগুলি নিয়ে  আলোচনা করার সময়, অ্যাপোলো হাসপাতালের লাইফস্টাইল মেডিসিন প্রশিক্ষক এবং প্রিন্ট মিডিয়া কলামনিস্ট, গবেষণা পরামর্শদাতা ডাঃ প্রিয়াঙ্কা রোহতাগি আমাদের শরীরের সারাদিনের স্বাভাবিক ছন্দের বা সার্কাডিয়ান রিদমের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ থাকার গুরুত্বের উপর জোর দেনঘুমের জন্য শরীরের সারাদিনের স্বাভাবিক ছন্দ থেকে বিচ্যুত হওয়া (গুণমানএবংপরিমাণ উভয়ই), পর্যাপ্ত হাইড্রেশন না পাওয়া, সিগারেট এবং অ্যালকোহল অপব্যবহারে লিপ্ত হওয়া এবংঅতিরিক্ত মানসিক চাপ নেওয়া, এইসবগুলি  প্রদাহের দিকে পরিচালিত করে এবং কিডনির উপর চাপ সৃষ্টি করে, তিনি বলেন তিনি বলেন, ঘুমের জন্য (গুণমান ও পরিমাণ উভয়ই) সার্কাডিয়ান রিদম থেকে সরে আসা, শরীর পর্যাপ্ত পরিমাণে আর্দ্র না থাকা, সিগারেট ও মদ্যপানে আসক্তি এবং অতিরিক্ত চাপ নেওয়া, এগুলি প্রদাহের দিকে এগিয়ে নিয়ে যায়  আর কিডনির উপরে চাপ সৃষ্টি করে।   

হার্ট ও কিডনি সংযোগ

হার্টের রোগ, উচ্চ রক্তচাপ এবং ডায়াবেটিসের মত শারীরিক ব্যাধিগুলি কিডনির কার্যক্ষমতাকে আরও ক্ষতিগ্রস্থ করতে পারে।  

শরীর থেকে দূষিত পদার্থকে ছেঁকে বের করে দেওয়ার কিডনির ক্ষমতার সাথে হার্টের স্বাস্থ্যের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছেকিডনি যখন ত্রুটিপূর্ন কাজ করা শুরু করে, রক্তে তখন অপরিশোধিত জল ও অবাঞ্ছিত মিনারেল ভরে যায় যেগুলি হার্টে ফিরে আসে।  

হার্ট কিভাবে কিডনির সাথে সংযুক্ত তা নিয়ে আলোচনায় ডাঃ রোহতাগি বলেন, “যখন হার্ট বা হৃৎপিণ্ড আর দক্ষতার সাথে পাম্পিং করেনা তখন এটিতে রক্ত জমতে থাকে, যার ফলে হৃৎপিণ্ডের প্রধান শিরাগুলিতে চাপ তৈরি হয়এই প্রধান শিরাগুলি কিডনির সাথে যুক্ত থাকে যার ফলে কিডনিতেও রক্ত ​​​​জমা হতে থাকে”।  

মারাঠে আরও বলেন, “রক্ত থেকে জল ও লবণ বের করে দিয়ে কিডনিগুলি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। এগুলি রেনিন নামের হরমোনও তৈরি করে যেটি রক্তে সোডিয়াম-পটাশিয়ামের ভারসাম্য বজায় রেখে রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণ করে”। উপরন্তু, এগুলি রক্তের পরিমাণকে নিয়ন্ত্রণ করে কার্ডিয়াক আউটপুট এবং রক্তচাপকে বজায় রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে, তিনি বলেন।  

যে সকল ব্যক্তিদের ডায়াবেটিস রয়েছে তাদের ডায়েট এবং জীবনযাত্রার প্রতি অতিরিক্ত মনোযোগী হওয়া প্রয়োজন। ব্লাড সুগারের মাত্রাকে যদি নিয়ন্ত্রণে না রাখা যায় তাহলে কিডনি সহ সারা শরীর জুড়ে রক্তবাহগুলি ক্ষতিগ্রস্থ হয়, সেগুলিকে অকেজো করে দেয়।  

যে খাবারগুলি কিডনি ভাল রাখে

কিডনির স্বাস্থ্য রক্ষা করার জন্য আহার একটা মুখ্য ভূমিকা পালন করে থাকে। পিয়াররিভিউড জার্নাল, নিউট্রিয়েন্টস প্রকাশিত ২০২১  সালের গবেষণায় বলা হয়েছে যে পর্যাপ্ত পরিমাণে মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট না খাওয়ার পাশাপাশি মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট বেশি গ্রহণ করা দু’ই কিডনিরোগের বিকাশের সাথে যুক্ত অতএব, কিডনির সূক্ষ্ম কার্যকারিতা সংরক্ষণের জন্য খাদ্য তালিকায় পর্যাপ্ত পরিমাণে সমস্ত মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট গ্রহণ করা আবশ্যক 

আমাদের অন্ত্রের মাইক্রোবাওটা (microbiota)কিডনিকে সংক্রমণ ও ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করে। এই অবস্থা বদলে গেলে কিডনির রোগ এবং সংক্রমণের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে। “অরিতিক্ত প্রক্রিয়া করা খাবার অন্ত্রের মাইক্রোবিয়াম (microbiome)-এর উপরে নেতিবাচক প্রভাব বিস্তার করে যা আমাদের হজমের উপরে প্রভাব ফেলে, পরবর্তী কলে দীর্ঘস্থায়ী কিডনির রোগের ঝুঁকি বেড়ে যায়,” বলেন ডঃ রোহতাগি।  

তিনি যোগ করেছেন যে একজনকে অন্ত্রের মাইক্রোবায়োমের গুরুত্ব বুঝতে হবে এবং প্রোটিনের অংশের বিশেষত প্রোটিনগুলিতে পরিবর্তন করা যাবে না 

কিডনিরোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের জন্য প্রোটিন খাওয়ার প্রভাব নিয়ে আলোচনা করে তিনি বলেন, “মোটক্যালোরির ১০ থেকে ১৫ শতাংশ প্রোটিন, বিশেষ করে পশুপ্রোটিন রাখতে হবে। সয়াবড়ি, ডাল এবং বাজরা নিরামিষ ভোজীদের জন্য প্রোটিনের ভালো উৎস”। 

মারাঠে বলেন যে এমনকি যাদের কিডনির সমস্যা রয়েছে  তাদেরও পর্যাপ্ত পরিমাণে দুধ ও দুগ্ধজাত দ্রব্য যেমন দই, পনির, সয়াবিন এবং সয়া পনির (তোফু), ডিমের সাদা অংশ এবং চিকেন খাওয়া উচিত।  

ডঃ রোহতাগির পরামর্শ হল কিডনির স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য কম পটাসিয়াম এবং কম সোডিয়াম যুক্ত খাবার খাওয়া ভালো। এই পুষ্টিকর পরিপোষকগুলি  পাওয়ার জন্য প্রাকৃতিক উৎস যেমন ফল ও শাক সবজি হল ভালো উপায়। যাদের কিডনি ঠিকমত কাজ করছে না,  মারাঠে তাদের জন্য পেঁপে, আপেল, নাশপাতি, পেয়ারা, আনারস এবং কমলার মতো কম পটাসিয়াম জাতীয় ফল খাওয়ার পরামর্শ দেন 

যদিও রোহতাগি ফসফরাসের সমৃদ্ধ উৎস হওয়ার কারণে ডাল থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন, মারাঠে রান্নার আগে ফাইটেট এবং ট্যানিনের মতো অ্যান্টিনিউট্রিয়েন্ট অপসারণের জন্য গরম জলে ডালএবং পাতাযুক্ত শাক সবজি ভিজিয়ে রাখার পরামর্শ দেন 

আপনার অভিজ্ঞতা বা মন্তব্য শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এখন খবরে

প্রবন্ধ

প্রবন্ধ
দাঁত এবং মাড়ির স্বাস্থ্য খারাপ হলে সংক্রামক এন্ডোকার্ডাইটিস হতে পারে অর্থাৎ হার্ট ভালভের আস্তরণের ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণ। 
প্রবন্ধ
ছেলের বয়স 20 ছোঁয়নি, কিন্তু মাথায় একগাদা পাকা চুল। কেন হয় এমনটা, চুল পাকার স্বাভাবিক বয়সই বা কত, এই সব প্রশ্নের উত্তরই জেনে নেওয়া যাক।
প্রবন্ধ
ব্যায়াম নারীদের হাড় মজবুত রাখতে এবং হরমোনের ওঠানামা প্রতিরোধে সাহায্য করে। বাড়িতে 40 মিনিটের ব্যায়াম মহিলাদের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যকে উন্নত করে।
প্রবন্ধ
যোগায় হস্তমুদ্রা শুধুমাত্র ভঙ্গিমা নয়, প্রতিটি মুদ্রার নিজস্ব স্বাস্থ্য উপকারিতা রয়েছে।
প্রবন্ধ
ছয় বছরের মধ্যে দুবার কিডনি প্রতিস্থাপন করেছেন। অ্যাডভেঞ্চার প্রেমী কলকাতার সেই ব্যবসায়ী এর মধ্যেই রোমাঞ্চের স্বাদও নিতে বেরিয়ে পড়েছেন।
প্রবন্ধ
ডার্মাটোমায়োসাইটিসের প্রাথমিক লক্ষণ, ত্বকের ফুসকুড়ি, পেশির দুর্বলতার মতো বেশ কিছু বিষয়। কিন্তু কখনও তা রক্ত সঞ্চালন প্রভাবিত করে, আবারও কোলন ক্যান্সারও ডেকে আনতে পারে।

0

0

0

0

0

0

0

0

0

Opt-in To Our Daily Healthzine

A potion of health & wellness delivered daily to your inbox

Personal stories and insights from doctors, plus practical tips on improving your happiness quotient

Opt-in To Our Daily Healthzine

A potion of health & wellness delivered daily to your inbox

Personal stories and insights from doctors, plus practical tips on improving your happiness quotient
We use cookies to customize your user experience, view our policy here

আপনার প্রতিক্রিয়া সফলভাবে জমা দেওয়া হয়েছে.

হ্যাপিস্ট হেলথ টিম যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আপনার কাছে পৌঁছাবে।